Apr 25, 2014, 8:18 am (BST)

সংবাদ শিরোনাম

জাতীয় সংবাদ : আশাশুনিতে জামায়াত নেতা গ্রেফতার, এনকাউন্টারে গুলিবিদ্ধ * খুলনায় ১৪ দলের জনসমাবেশ আগামীকাল    |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : দক্ষিণ কোরিয়া পৌঁছেছেন ওবামা   |   
প্রচ্ছদ | যোগাযোগ | Print
 
 
 
আবহাওয়া
 
সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত
 
নামাযের সময়
 
 
 
টাইটানিক বেলফাস্ট কমপ্লেক্স মুখরিত হবে পর্যটকদের পদচারণায়
 
বেলফাস্ট, ৯ এপ্রিল (বাসস/এএফপি) : বিশ্বখ্যাত টাইটানিক জাহাজ ডুবির এক শতক পর বেলফাস্ট আবারো লাখো দর্শণার্থীর ভীড়ে মুখর হয়ে উঠবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই শহরেই ১শ বছর আগে তৈরি করা হয়েছিল স্বপ্নের প্রমোদতরী টাইটানিক। আর ঐতিহাসিক এ জাহাজ নির্মাণস্থলে পর্যটকদের টানতে নানা পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। নগরীর কেন্দ্রস্থলে তৈরি করা হয়েছে টাইটানিকের আদলে টাইটানিক বেলফাস্ট কমপ্লেক্স। বিখ্যাত এই জাহাজ ডুবির শতবর্ষ উপলক্ষে ভবনের দরজা সবার জন্য খুলে দেয়া হয়েছে। পর্যটকরা ভবনের ভিতরে টাইটানিকের জন্ম ইতিহাস থেকে শুরু করে ডুবে যাওয়ার আগ পর্যন্ত বিভিন্ন ঘটনা সম্পর্কে জানতে পারবেন।
উত্তর আয়ারল্যান্ডের রাজধানী বেলফাস্ট। জনসংখ্যার দিক থেকে যুক্তরাজ্যের ১৪তম বৃহত্তম নগরী এটি। ১৯৯০ দশকের আগ পর্যস্ত প্রায় তিন দশক সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় উত্তর আয়ারল্যান্ড বিপর্যস্ত ছিল। সে সময় এ অঞ্চলে পর্যটকদের তেমন আনাগোনা ছিলনা। তারা এ স্থানকে তাদের নিরাপত্তার জন্য হুমকি মনে করতো। তবে এখন পরিস্থিতি বদলে গেছে। টাইটানিকের জন্ম শহর বেলফাস্ট আবারো পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত হচ্ছে। অতীতের মত আবারো এখানে লাখো দর্শণার্থীদের সমাগম ঘটবে বলে আশা করা হচ্ছে। এতে এ অঞ্চলে পর্যটন অর্থনীতিও জোরালো হবে।
টাইটানিক বেলফাস্টের মার্কেটিং প্রধান ক্লেইরি ব্রাডশ বলেন,গত কয়েক বছর ধরে বেলফাস্ট ও উত্তর আয়ারল্যান্ডকে বিশ্বের কাছে আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে উপস্থাপনের চেষ্টা চালাচ্ছি। তবে এটা খুবই কঠিন কাজ। কারণ আমাদের একটি নেতিবাচক অতীত রয়েছে।
তিনি বলেন,টাইটানিকের একটি বিরাট ইতিহাস আছে যা পর্যটকদের বেলফাস্টে আসার সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে সাহায্য করবে। আর এতে আমাদের দেশে প্রচুর অর্থও আসবে।
উত্তর আয়ারল্যান্ডের অর্থনীতি ব্যাপকভাবে সরকারি খাতের ওপর নির্ভরশীল। এ অঞ্চলের অর্থনীতি কেবল যুক্তরাজ্যের মন্দা ও কৃচ্ছতার কারণে নয়, আয়ারল্যান্ড প্রজাতন্ত্রের অর্থনৈতিক ধসের কারণে কালো ছায়া পড়েছে।
উত্তর আয়ারল্যান্ডে ২০১১ সালে ৯ লাখ ৭৩ হাজার পর্যটকের আগমন ঘটেছিল। তবে এর ৮৪ শতাংশ ব্রিটিশ ভূখন্ড থেকে আগত। গত বছর ব্যয় হয়েছিল ৪১ কোটি ৭০ লাখ ডলার।
বেলফাস্টে তৈরি টাইটানিক জাহাজ ১৯১২ সালের ১৫ এপ্রিল ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটন থেকে নিউইয়র্কে তার প্রথম যাত্রাকালে বরফের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে আটলান্টিক মহাসাগরে ডুবে যায়। এতে ১ হাজার ৫শ ১৪ জনের প্রাণহানি ঘটে। মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনার শত বার্ষিকী উপলক্ষে গত ৩১ মার্চ টাইটানিক বেলফাস্ট খুলে দেয়া হয়।
টাইটানিক বেলফাস্টের প্রধান নির্বাহী টিম হাসবেন্ডস বলেন,অর্থনীতি যখন চ্যালেঞ্জের মুখে ঠিক সেই মুহূর্তে বেলফাস্ট গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে।
তিনি বলেন,এটা এই প্রদেশে পর্যটন শিল্পের বিকাশে প্লাটফর্ম হতে পারে।
 
 
 
প্রচ্ছদ | যোগাযোগ | Print
সার্বিক তত্ত্বাবধানে : বাসস আই,টি বিভাগ এবং বাংলাদেশ অনলাইন লিমিটেড